logo

এক বল খেলেই নায়ক!

এক বল খেলেই নায়ক!

ক্যানবেরা, ১৫ জানুয়ারি- আগের দুই ম্যাচে একাদশে থাকলেও সুযোগ পাননি ব্যাটিংয়ের। তৃতীয় ম্যাচে এসে প্রথমবারের মতো যখন ব্যাট হাতে ক্রিজে নামলেন, ম্যাচে তখন উত্তেজনাপূর্ণ এক মুহূর্ত। দলের জয়ের জন্য এক বলে দরকার চার রান।

টুর্নামেন্টে নিজের মোকাবিলা করা সেই প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে দলকে রুদ্ধশ্বাস এক জয় এনে দিলেন জ্যাক লেম্যান।

ম্যাচটা চলমান বিগ ব্যাশ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের। বুধবার টুর্নামেন্টে হোবার্ট হারিকেনসের মুখোমুখি হয়েছিল অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্স। অ্যাডিলেড ওভালে হোবার্টের দেওয়া ১৪৪ রানের লক্ষ্যে শেষ ওভারে অ্যাডিলেডের প্রয়োজন ছিল ১০ রান, হাতে ৭ উইকেট। শেষ বলে যেটা দাঁড়ায় ৪ রান, হাতে ৬ উইকেট।

হোবার্টের মিডিয়াম পেসার সিমন মিলেনকোর করা ওই ওভারের চতুর্থ বলে অ্যালেক্স রস আউট হওয়ার পরই ক্রিজে এসেছিলেন জ্যাক লেম্যান। তবে তিনি স্ট্রাইক পান শেষ বলে। এমনই এক বলে যেটা কিনা টুর্নামেন্টেই তার প্রথম বল। আর সেই বলেই তার দলের জয়ের জন্য দরকার ৪ রান। ম্যাচে তখন উত্তেজনার পারদ আকাশচুম্বী।

অ্যাডিলেডের সমর্থকদের মনেও তখন একটাই প্রশ্ন, দলকে জেতাতে পারবেন কি লেম্যান? সমর্থকদের হতাশ করেননি এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। মিলেনকোর অফ স্টাম্পে করা বলটি মিড-অফের ওপর দিয়ে সীমানার ওপারে আছড়ে ফেলে অ্যাডিলেডকে রুদ্ধশ্বাস এক জয় এনে দেন লেম্যান। পুরো টুর্নামেন্টে নিজের খেলা প্রথম বলেই খেলেন ম্যাচজয়ী এক শট।

চরম উত্তেজনাপূর্ণ ওই মুহূর্তে লেম্যানের অমন দুর্দান্ত শট দেখে ধারাভাষ্য কক্ষে থাকা অ্যাডাম গিলক্রিস্ট তো বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না! অস্ট্রেলিয়ান গ্রেট নিজেই পরে উল্লাসে মাতেন। দুই উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কারটা সতীর্থ আদিল রশিদ জিতলেও ম্যাচের আসল ‘নায়ক’ তো লেম্যানই!

তবে এই জ্যাক লেম্যানের আরেকটি পরিচয় আছে। তিনি অস্ট্রেলিয়া দলের প্রধান কোচ ড্যারেন লেম্যানের ২৩ বছর বয়সি ছেলে। ছেলের ম্যাচজয়ী ওই শটের পর পরই বাবা লেম্যান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে টুইট করেছেন, ‘কতটা দারুণ এটা। গর্বিত বাবা এবং পরিবার।’