logo

যে ৭টি অভ্যাস আপনার ঘরকে রাখবে পরিষ্কার!

নিগার আলম


যে ৭টি অভ্যাস আপনার ঘরকে রাখবে পরিষ্কার!

“নিয়ম করে যে ঘর পরিষ্কার করে, অসুখ-বিসুখকে সে একশ হাত দূরে রাখে”। কিন্তু এই ঘর পরিষ্কার করারটা অনেক কষ্টসাধ্য, বিশেষ করে যদি বাসায় কোন গৃহকর্মী না থাকে তখন। যদি কিছু অভ্যাস আপনার নিজের মধ্যে আয়ত্ত করে নিতে পারেন, তবে এই কষ্টসাধ্য কাজটিও সহজে করে নিতে পারবেন।

১। বিছানাটি পরিষ্কার করুন
সকালে ঘুম থেকে ওঠার সাথে সাথে বিছানাটি গুছিয়ে ফেলুন। চাদরটি টান টান করে নিন, বালিশগুলো সঠিক স্থানে রেখে দিন। এই ছোট অভ্যাসটি আপনার ঘর পরিষ্কারের কাজ অনেকখানি কমিয়ে দিবে।

২। রান্নাঘরের কাউন্টারটি গুছিয়ে রাখুন
রান্না করার সময় মশলার কৌটা, চামচ ইত্যাদি চুলার উপর বা আশেপাশে না রেখে সঠিক স্থানে রাখুন। পরে রাখবেন বলে রেখে দিলে দেখা যায় অনেক সময় সেটি আর সঠিক স্থানে রাখা হয় না। এর ফলে রান্নাঘরটি এলোমেলো থেকে যায়।

৩। জুতো বাইরে রাখুন
আমাদের অনেকের অভ্যাস বাইরে থেকে এসে জুতো নিয়ে ঘরের ভেতর চলে যাওয়া। এই অভ্যাসটির কারণে ঘর দ্রুত ময়লা হয়ে থাকে। দরজার পাশে জুতো রাখার ব্যবস্থা করুন। বাইরে থেকে এসে জুতোটি সেখানে রাখুন।

৪। সময় নির্দিষ্ট রাখুন
ঘর পরিষ্কার করাটা বেশ সময়সাপেক্ষ। আর কর্মজীবী মহিলাদের জন্য এটি আরও বেশি কঠিন। তাই পরিষ্কারের সময় নির্দিষ্ট করে নিন। সবচেয়ে ভাল হয় প্রতিটি কাজের সময় যদি আপনি নির্ধারণ করে নিতে পারেন। যেমন ঘর পরিষ্কার ১০ মিনিট, রান্নাঘর পরিষ্কার ১০ মিনিট এভাবে প্রতিটি কাজের জন্য সময় নির্দিষ্ট করে নিন।

৫। ছোট থেকে শুরু করুন
ছোট ছোট কাজ থেকে শুরু করুন কিংবা যে কাজটি করতে আপনি পছন্দ করেন সেটি দিয়ে শুরু করুন। এতে কাজে বিরক্ত লাগবে না আর কাজও দ্রুত শেষ হয়ে যাবে।

৬। থালাবাসন পরিষ্কার করুন
রাতের খাবার খাওয়ার পর ময়লা থালাবাসন ধুয়ে ফেলুন। পরের দিনের জন্য জমিয়ে রাখবেন না। পরের দিনের নাস্তা এবং রাতের থালাবাসন জমে অনেকগুলো হয়ে যায়, তখন পরিষ্কার করতে কষ্ট বেশি হয়ে থাকে।

৭। পরিবারে সদস্যদের সাহায্য নিন
আপনি যদি আপনার ঘরটি সবসময় পরিষ্কার রাখতে চান, তবে পরিবারের সদস্যদের সাহায্য নিন। তাদেরকে বয়স এবং সামথ্য অনুযায়ে ঘরের কাজ ভাগ করে দিন। এই একটি কাজ আপনার ঘর পরিষ্কার রাখার সাথে সাথে আপনার উপর কাজের চাপও কমিয়ে দিবে।

এই অভ্যাসগুলো গৃহকর্মী ছাড়াও আপনার ঘরকে রাখবে একদম পরিষ্কার।