logo

যমুনায় হচ্ছে রেলওয়ে ব্রিজ, রিসোটের্র সুরক্ষায় সেনাবাহিনী

যমুনায় হচ্ছে রেলওয়ে ব্রিজ, রিসোটের্র সুরক্ষায় সেনাবাহিনী

যমুনা রিসোর্টের ফাইল ছবি

ঢাকা, ০৮ জানুয়ারি- যমুনা নদীর উপর দিয়ে একটি স্বতন্ত্র রেলওয়ে ব্রিজ নির্মাণে প্রয়োজনীয় জমি প্রদানে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ রেলওয়ের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বনানীস্থ সেতু ভবনে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের বোর্ডসভা শেষে এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

সেতু বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. আমজাদ হোসেন নিজ নিজ পক্ষে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেন। এসময় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি উপস্থিত ছিলেন।

সভাশেষে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, যমুনা রিসোর্টের সুরক্ষার জন্য আপাতত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে প্রদান করা হচ্ছে। সেতু বিভাগ ও সেনাবাহিনী যৌথ পরিদর্শনের মাধ্যমে বিষয়টি নির্ধারণ করবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বোর্ড সভায় ৫০০ মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য নর্থ-ওয়েষ্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেডের অনুকূলে ১২ দশমিক ৪৩ একর জমি ৩০ বছরের জন্য ইজারা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এছাড়াও বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ কর্মকর্তা-কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট বিধিমালা ২০১০ অনুসারে কর্মকর্তা-কর্মচারীগণের সন্তানদের শিক্ষা বৃত্তি ৫০০ টাকা হতে বৃদ্ধি করে ২ হাজার টাকা করার সিদ্ধান্তও নেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

পদ্মা সেতু প্রকল্পের ব্যয় বৃদ্ধির প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, ডলারের বিনিময় হার ৬৯ টাকা থেকে ৭৮ টাকা হয়েছে। ২০১০ এ ডিপিপি করার সময় ডিটেইল ডিজাইন সমাপ্ত হয়নি। ২০১০ এর পর কন্ট্রাক্ট এওয়ার্ড করতে ৪ বছরের বেশি সময় অতিবাহিত হয়েছে। ৫০০ একর অতিরিক্ত জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। মাওয়া প্রান্তে ১ দশমিক ৩ কিমিলোমিটার অতিরিক্ত নদীশাসন এবং উভয় প্রান্তে ফেরীঘাট স্থানান্তরের জন্য সড়ক নির্মাণ ও প্রশস্তকরণ কাজ করা হচ্ছে।