logo

দুশ্চিন্তার মারাত্মক ৫ ফল

দুশ্চিন্তার মারাত্মক ৫ ফল

নিজেকে জোর করে হলেও সবার সামনে স্বাভাবিক রাখছেন। অথচ মানসিক চাপ কুরে খাচ্ছে আপনার ভালো থাকাকে। ঠিক এমনিভাবে দৈনন্দিন জীবনে জড়িয়ে যাচ্ছে নানা দুশ্চিন্তা। তবে মানসিক চাপে থাকার পেছনে নিজের ভুলও কম থাকে না। যেখানে দুশ্চিন্তার প্রয়োজন রয়েছে সেখানে তো বটেই, যেখানে প্রয়োজন নেই সেখানেও চাপ নিয়ে ফেলি। এই কাজটি আমাদের দেহ এবং মনের ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলে। শুধু তাই নয় এই মানসিক চাপের প্রভাব দেখা যায় জীবনযাপনেও। তাৎক্ষণিকভাবে হয়তো প্রভাব বোঝা যায় না। কিন্তু পরবর্তীতে এর মারাত্মক ক্ষতির দিক স্পষ্ট হয়ে দেখা দেয়। যেমন-

অনিদ্রা
মানসিক চাপের মস্তিষ্কের ওপর অনেক বেশি প্রভাব থাকে এটা কমবেশি সবার জানা। আমরা যখন কোনো ব্যাপার নিয়ে অনেক বেশি দুশ্চিন্তা করি তখন আমাদের মস্তিষ্ক সজাগ থাকে। দুশ্চিন্তা আপনাকে ঘুমাতে দেয় না, বরং জোর করে হলেও জাগিয়ে রাখে। এভাবে অনিদ্রার সমস্যা অভ্যাসে পরিণত হতে থাকে। পরবর্তীতে হৃদরোগ, মস্তিষ্কে সমস্যা, হজমজনিত সমস্যা, লিভারে সমস্যাসহ নানা শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়।

দ্রুত বার্ধক্য
অল্প বয়সেই বুড়িয়ে যাওয়ার সবচেয়ে বড় একটি সহায়ক অতিরিক্ত মানসিক চাপ। মানসিক চাপের ফলে আমাদের মস্তিষ্কের ওপর চাপ পড়ে। যার প্রভাব দেখা যায় দেহের ওপর। শরীরে ভর করে বার্ধক্য। বয়সের আগেই দেহের অঙ্গপ্রত্যঙ্গের স্বাভাবিক কার্যকলাপে বিঘ্ন ঘটতে থাকে। তাই অতিরিক্ত মানসিক চাপ নেয়ার ব্যাপারে সতর্ক থাকাই ভালো।

নেতিবাচক চিন্তা বাড়ে
অনেক বেশি মানসিক চাপে থাকলে আপনার চিন্তাধারা অনেকাংশে নেতিবাচক হয়ে যাবে। সব সময় বাজে চিন্তা মাথায় ভিড় করবে। সাধারণ ভাবে এবং ইতিবাচক ভাবে চিন্তা করার ক্ষমতা হারিয়ে যেতে শুরু করবে। এভাবে সবসময় শুধু নেতিবাচক চিন্তা করলে নিজের ওপর এবং মানুষের ওপর থেকে বিশ্বাস পুরোপুরি হারিয়ে যাবে। এতে করে মানসিক অশান্তি কাটবে না একেবারেই।

দ্রুত সিদ্ধান্ত বদলে যায়
মানসিক চাপের কারণে হুটহাট সিদ্ধান্ত নেয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। খুব বেশি দুশ্চিন্তা করলে সিন্ধান্তহীনতা দেখা দেয়। নিজের জন্য কোনটি ভালো তা বুঝতে পারা যায় না। সেকারণে হুট করে একটি সিন্ধান্ত নিতে দেখা যায়। আর এসব চিন্তা বেশিরভাগ সময়ই ভুল হয়ে যায়। এর প্রভাব দেখা যায় জীবনযাপনে।

সঠিক চিন্তার ক্ষমতা লোপ
মানসিক চাপের ফলে সঠিকভাবে চিন্তা করার ক্ষমতা একেবারেই লোপ পায়। সঠিক বিচার বিবেচনা করে কাজ করার ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়। অতিরিক্ত দুশ্চিন্তার ফলে মস্তিষ্ক সঠিকভাবে কাজ করতে পারে না। আপনি লক্ষ্য করে দেখবেন যখন আপনি অনেক বেশি দুশ্চিন্তা করেন তখন অন্য কোনো কিছুই মাথায় কাজ করে না। প্রতিনিয়ত এঅবস্থা চলতে থাকলে মস্তিস্কের স্থায়ী ক্ষতি হয়ে যায়। সুতরাং অতিরিক্ত মানসিক চাপ নেয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন।