logo

বাসা ভাড়া দিতে না পেরে নৌকায় বাস করছেন বৃটিশ এমপি

বাসা ভাড়া দিতে না পেরে নৌকায় বাস করছেন বৃটিশ এমপি

ওয়াশিংটন, ০৬ জানুয়ারি- ব্রিটেনের টরি পার্টির উদিয়মান নেতৃত্ব সংসদ সদস্য জনি মার্সার লন্ডনের অতিরিক্ত বাসা ভাড়া এড়াতে পূর্ব লন্ডনে একটি নৌকায় বসবাস করছেন। সেখান থেকেই সংসদ অধিবেশনে যোগ দেন তিনি।দ্য টেলিগ্রাফে প্রতিবেদনটি তৈরী করেছেন বেন রেইলী স্মিথ।

জনি মার্সার একজন সাবেক সেনা কর্মকর্তা। তিনি আফগানিস্তানে যুদ্ধ করেছেন। গত মে মাসে তিনি এমপি নির্বাচিত হন। বেশি বাসাভাড়া এড়াতে দক্ষিণ উপকূল থেকে তিনি তার নৌকাটি পূর্ব লন্ডনের কানাডা ওয়াটারের কাছে নিয়ে এসেছেন।

৩৪ বছর বয়সী এই এমপির নৌকায় গোসলখানা কিংবা গরম করার কোনো ব্যবস্থা নেই। তবে তা নিয়ে কোনো আপেক্ষ নেই তার। তবে তিনি বলছেন, পরিবার নিয়ে হোটেলে সময় কাটানোর চেয়ে এ জায়গাটিই তার কাছে প্রিয়।

প্লেমাউথ মুর ভিউয়ের এই এমপি দাবি করেন, বাসাভাড়া বাবদ বছরে ২৪০০ ব্রিটিশ পাউন্ড (প্রায় ২,৮০,০০০ টাকা) আর সপরিবারে বাস করার জন্য সর্বোচ্চ ২৩,০০০ পাউন্ড (প্রায় ২৬ লাখ ৭৪ হাজার টাকা) পাওয়ার সুযোগ রয়েছে তার।


গত  বছরের মে মাসে হাউজ অব কমন্সে নির্বাচিত হন মার্সার। এর আগে তিনি আফগানিস্তানে ২৯ কমান্ডো রেজিমেন্ট র‌য়্যাল আর্টিলারির ক্যাপ্টেন ছিলেন। সামরিক বাহিনীর পেনশনের টাকায় তিনি মোটরচালিত ক্ষুদ্র নৌকাটি কিনেছেন এবং পরিবারের পোষা মৃত কুকুরের নামানুসারে নাম রেখেছেন ‘পিপা’।

এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর লন্ডনে একটি হোটেলে উঠেছিলেন এবং সেখানে স্থায়ীভাবে থাকার ঠিকানা খুঁজেছিলেন। কিন্তু লন্ডনে এসবের ভাড়া দেখে তিনি মুষড়ে পড়েন।
‘সপ্তাহে দুই-তিন দিন থাকার জন্য এতো ভাড়া আমার কাছে অশ্লীল মনে হয়েছে। আমি এতো টাকা খরচ করতে প্রস্তুত নই,’ বলেন মার্সার। ‘লন্ডনে দ্বিতীয় নিবাস গড়ার কোনো ইচ্ছেই আমার নেই। আমার পারিবারিক বাড়িটিই যথেষ্ট।’

তিনি জানান, এরপর তিনি নৌকাটি নিয়ে আসার চিন্তা করেন এবং দেখতে পান এজন্য ছয় মাসে বড়জোর ১২০০ পাউন্ড খরচ হতে পারে। এটা অনেক সস্তা। মার্সার বলেন, তার অনেক সহকর্মী এমপি তার নৌকায় বাস করাকে ভালো চোখে দেখছেন না। কিন্তু বর্তমান পরিকল্পনা থেকে তার সরে আসার কোনো ইচ্ছা নেই।
নৌকায় শুধুমাত্র রান্না করার জন্য একটি স্টোভ রয়েছে। আরা ভাজা পোড়া করার জন্য একটি সংযুক্ত থালা রয়েছে এতে।

ঘুমানোর জন্য কম্বলের পরিবর্তে একটি পুরাতন স্লিপিং ব্যাগ ব্যবহার করেন জনি।যেটা তিনি সেনাবাহিনীতে চাকুরিরত অবস্থায় ব্যবহার করতেন। জনি বলেন, ওটা থেকে বেশ দুর্গন্ধ ছড়ায়। তবে তিনি ওটাতে বেশ উষ্ণতা পান। মার্সার বলেন, কয়েক সপ্তাহ আগে আমি একটি হিটার কিনেছি। তবে ওটা ঠিকমত কাজ করছে না।