logo

টি-টোয়েন্টি দলে নতুন মুখ নুরুল ও আবু হায়দার

টি-টোয়েন্টি দলে নতুন মুখ নুরুল ও আবু হায়দার

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচের দলে সুযোগ পেয়েছেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান ও বাঁহাতি পেসার আবু হায়দার রনি। এখনও কোনো আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি না খেলা অলরাউন্ডার শুভাগত হোমও আছেন মঙ্গলবার ঘোষণা করা ১৪ সদস্যের এই দলে। 

সবশেষ জিম্বাবুয়ে সিরিজের টি-টোয়েন্টি দল থেকে এই দলে পরিবর্তন আছে ৫টি। জায়গা হারিয়েছেন নাসির হোসেন, লিটন কুমার দাস, জুবায়ের হোসেন, কামরুল ইসলাম রাব্বি ও এনামুল হক। চোট কাটিয়ে ফিরেছেন সৌম্য সরকার। প্রথম সন্তানের পাশে থাকার জন্য ওই সিরিজে না খেলা সাকিব আল হাসানও ফিরছেন।

বিপিএলে নজর কাড়া পারফরম্যান্সের পরে আবু হায়দারের দলে আসা অনেকটা নিশ্চিতই ছিল। ২১ উইকেট নিয়ে এবারের বিপিএলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি ছিলেন এই বাঁহাতি পেসার। নজর কেড়েছেন গতিময়, আগ্রাসী বোলিং করে।

নুরুলকে মূলত ভাবা হচ্ছে ৭ নম্বরে ব্যাটিংয়ের জন্যই। এই পজিশনে টি-টোয়েন্টির চাহিদা মেটানোর মত একজন ব্যাটসম্যান দীর্ঘদিন ধরেই খুঁজে আসছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপকে সামনে রেখে টিম ম্যানেজমেন্ট এই জায়গাটায় আপাতত ভাবছে নুরুলকেই।

বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান না হলেও নুরুলের পরিচিতি আছে ‘স্মার্ট’ ব্যাটসম্যান হিসেবে। উইকেটে গিয়েই শট খেলতে পারেন, উদ্ভাবনী শট খেলায়ও জুড়ি নেই, সিঙ্গেল চুরি করতে পারেন দারুণ। বাড়তি পাওনা হিসেবে কিপিং তো আছেই। টেকনিক্যালি দেশের সেরা উইকেটকিপার মনে করা হয় নুরুলকে।

শুভাগতর দলে আসাটা কিছুটা প্রশ্নবিদ্ধ। বিপিএলে উইকেট নিয়েছেন ৫টি, তবে বোলিং করেছেন নিয়ন্ত্রিত। ব্যাট হাতে ৯ ইনিংসে করেছেন ৯৪ রান। তবে উইকেটে গিয়েই শট খেলে দলে অবদান রেখেছেন কয়েকটি ম্যাচে। দলে নির্বাচনে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে সেটিই। চার টি-টোয়েন্টির সিরিজ খেলতে ১১ জানুয়ারি বাংলাদেশে আসছে জিম্বাবুয়ে। ১৫, ১৭, ২০ ও ২২ জানুয়ারির সবকটি ম্যাচ হবে খুলনায়।

বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, আরাফাত সানি, কাজি নুরুল হাসান, শুভাগত হোম, মুস্তাফিজুর রহমান, আবু হায়দার রনি, আল আমিন হোসেন।