logo

ব্যায়াম বাদ দেওয়াই যখন ভালো

কে এন দেয়া


ব্যায়াম বাদ দেওয়াই যখন ভালো

সুস্থ থাকতে হলে জীবনচর্চায় শরীরচর্চা থাকতে হবেই। তা প্রতিদিন ঘন্টাখানেক হাঁটাহাঁটিই হোক আর সপ্তাহে ৫ দিন জিমে যাওয়াই হোক। শীতের এই মৌসুমে তো বিছানা থেকে উঠে জিমে জেতে হবে এটা ভাবতেও অনেকেই ভয় পান। আলসেমির কারণে ব্যায়াম বাদ দেওয়া একেবারেই অনুচিত, তবে কিছু অজুহাত আছে যেগুলোর কারণে আপনি একদিন ব্যায়াম বাদ দিতেই পারেন। এমন পরিস্থিতিতে পড়লে আসলে ব্যায়াম না করাই ভালো হবে আপনার।

১) অসুস্থতা
শরীর ম্যাজম্যাজ করে ব্যাথা, জ্বর, সর্দি, ডায়ারিয়া বা পেটের কোন সমস্যা থাকলে ব্যায়াম না করাই ভালো। এক্ষেত্রে ব্যায়াম করলে আপনি আরও অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন। অনেক ক্ষেত্রেই এসব অসুস্থতার পাশাপাশি থাকে ডিহাইড্রেশন, যা ব্যায়াম করলে আরও বাড়ে। তবে হালকা কাশি, গলা খুসখুস করা এ ধরণের কিছু সমস্যা অবশ্য হালকা ব্যায়াম করলে কমতে পারে। সুস্থ হবার পর আবার ধীরে ধীরে ব্যায়াম শুরু করুন।

২) রাত্রে ঘুম ভালো হয়নি
আপনি সাধারণত ভোরে ঘুম থেকে উঠে ব্যায়াম করেন। কিন্তু রাত্রে ৫-৬ ঘন্টারও কম ঘুম হয়েছে, ফলে নিজেকে ক্লান্ত লাগছে আপনার। এক্ষেত্রে ব্যায়াম না করে বরং বিছানায় ফেরত যাওয়াই ভালো। কারণ ক্লান্ত শরীরে বায়্যাম করলে উপকারের বদলে ক্ষতিই হবে। রাত্রে কমপক্ষে ৭-৯ ঘন্টা ঘুমানোর পর ব্যায়াম করা ভালো।

৩) ব্যায়ামের কারণে শরীরে ব্যাথা
প্রথম প্রথম ব্যায়াম শুরু করলে এমনটা হয়। যদি এই ব্যাথার কারণে আপনি উঠতে বসতে কোঁকাতে থাকেন, দৈনন্দিন কাজকর্ম করাই কঠিন হয়ে যায়। এক্ষেত্রে আপনি ব্যায়াম বাদ দিতে পারেন। কারণ এই ব্যাথা নিয়ে ব্যায়াম করতে গেলে আপনার ইনজুরি হবার সম্ভাবনা বাড়বে। এছাড়াও আপনি যদি অন্য কোন কাজে ঘাম ঝরিয়ে থাকেন এবং ব্যায়াম করার শক্তি না থাকে তাহলেও ব্যায়াম বাদ দিলে তেমন ক্ষতি হবার কথা নয়।

৪) কোন ধরণের ইনজুরি
এক্ষেত্রে দ্বিতীয়বার চিন্তার কোন দরকার নেই। আপনার যদি কোন ইনজুরি হয়ে থাকে অথবা আপনার মনে হয় কোন ইনজুরি হয়েছে তাহলে ব্যায়াম বন্ধ করে দিন সাথে সাথেই। ব্যায়াম করতে থাকলে এই ইনজুরি আরও খারাপ হবে। এক্ষেত্রে প্রফেশনালের পরামর্শ নেওয়া খুবই জরুরী। তিনিই বলতে পারবেন ইনজুরি সেরে উঠলে আপনি কবে ব্যায়াম শুরু করতে পারবেন।

৫) অতিরিক্ত ব্যায়াম থেকে ক্লান্তি
ক্লান্তি বললে ভুল হবে, বলা দরকার ফ্যাটিগ। আপনি যদি খুব উৎসাহ নিয়ে সব সময় জিম করেন, কিন্তু সম্প্রতি আপনার শরীর আর এই কষ্ট নিতে পারছে না। আপনার ঘুমের সমস্যা দেখা দিয়েছে, সবসময় পেশি ব্যাথা করছে, হার্ট রেট বেশি মনে হচ্ছে। এক্ষেত্রে ব্যায়াম বাদ দিলেই ভালো। আপনার ঘুমের সমস্যা দূর হলে আপনি ধীরে ধীরে ব্যায়াম শুরু করতে পারেন।

এটা জেনে রাখুন, ব্যায়াম করার উদ্দেশ্য হলো নিজেকে সুস্থ রাখা। এক্ষেত্রে ব্যায়াম করতে গেলে যদি আরও অসুস্থ হয়ে যায় তাহলে ব্যায়াম না করাই ভালো। এক্ষেত্রে নিজেকে দোষ দিয়ে লাভ হবে না, বরং ক্ষতি হতে পারে। অবশ্যই নিজের ভালোর কথা চিন্তা করে তারপর সিদ্ধান্ত নিন ব্যায়াম করবেন কি না।