logo

সাবিরুল ইসলামকে নিয়ে টরন্টোতে মাতামাতি

সাবিরুল ইসলামকে নিয়ে টরন্টোতে মাতামাতি

টরন্টো, ১ জানুয়ারি- কানাডার প্রথম বাংলা পত্রিকা, বর্হিবিশ্বের প্রথম বাংলা অনলাইন 'দেশে বিদেশে'র ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী ২৭ ও ২৮ ফেব্রুয়ারি মেট্টো টরন্টো কনভেনশন অডিটোরিয়ামে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য (Motivational Speech) রাখতে কানাডা আসছেন সারা বিশ্বের তরুণদের অহঙ্কার বৃটিশ বাংলাদশি সাবিরুল ইসলাম। ইতিমধ্যে কানাডার তরুনদের মধ্যে তাকে নিয়ে মাতামাতি শুরু হয়ে গেছে। জানা গেছে, অনেকেই সাবিরুলকে আগে থেকেই আন্তর্জালের মাধ্যমে চেনেন। এবার সামনা সামনি দেখা হবে তাই অন্যরকম একটা উত্তেজনা বিরাজ করছে তাদের মধ্যে। বিশেষ করে কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়াদের মধ্যে সাবিরুলের বক্তব্য শোনার আগ্রহ বেশি পরিলক্ষিত হচ্ছে। 

কে এই সাবিরুল ইসলাম? 
ইংল্যান্ডের বাসিন্দা সাবিরুল মাত্র ১৪ বছর বয়সে ব্যবসা শুরুর দুই বছর পর শেয়ার ব্যবসা করে আর্থিকভাবে সাবলম্বী হন। ১৭ বছর বয়সের মধ্যে সে বেশ কিছু বই লেখেন। যার মধ্যে দুটি সর্বোচ্চ বিক্রির রেকর্ডও গড়ে। তিনি কেবল লেখক বা বক্তা নন, শিক্ষার্থীদের জন্য ‘ট্রিন-ট্রাপেনার’ গেমটি উদ্ভাবন করে খ্যাতি অর্জন করেন। যা একসঙ্গে বিশ্বের ১৪টি দেশে ১৩টি ভাষায় বের হয়েছে। একই সঙ্গে যুক্তরাজ্যের ৬৫০টি স্কুলে তার উদ্ভাবিত ‘টিন-ট্রাপেনার’ গেমটি স্কুল পড়ুয়া তরুণদের ব্যবসা শেখার পাঠ্যসূচি হিসেবে অন্তর্ভূক্ত হয়েছে।

সাবিরুল বলেন, সাফল্যের মূল চাবিকাঠি হচ্ছে উদ্দীপনা। উদ্দীপনাই জ্ঞান অর্জনের সুযোগ করে দিবে। যদি কোন মানুষ সাফল্য অর্জনের ইচ্ছা পোষণ করে। তার ইচ্ছা শক্তি যদি দৃঢ় হয়। আর তার মধ্যে যদি উদ্দীপনা থাকে তাহলে এই উদ্দীপনাই তাকে সাফল্যের স্বর্ণশিখরে পৌঁছিয়ে দিবে।
এভাবেই তরুণ শিক্ষার্থীদের সাফল্যের গান শোনান সাবিরুল ইসলাম। এভাবেই তরুণদের সফলতার পথ দেখান তিনি।
তিনি বলেন, প্রতিটি মানুষের মধ্যেই আত্মশক্তি সুপ্ত অবস্থায় রয়েছে, যে আত্মশক্তির বলেই বলেই মানুষ সাফল্য অর্জন করতে পারে। শিক্ষার্থীদের বড় হওয়ার স্বপ্ন অন্তরে লালন করে অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছার চেষ্টা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান তিনি।
তিনি আরো বলেন, টাকার অভাবে তরুণদের উদ্ভাবনী চিন্তা থেকে যায় পর্দার আড়ালে। পর্দার আড়াল থেকে বের করে তরুণদের উদ্ভাবনী শক্তিকে কাজে লাগিয়ে উদ্যোক্তা তৈরীর জন্যই ‘ক্যাম্পেইন ইন্সপায়ার ওয়ান মিলিয়ন’।

উল্লেখ্য, ১৯৯০ সালে লন্ডনে জন্ম হলেও সাবিরুলের পৈত্রিক বাড়ি সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলায়। ১৪ বছর বয়সে সাবিরুল স্কুলের ছয় বন্ধুকে নিয়ে ওয়েব ডিজাইনের ব্যবসা শুরু করেন। এরপর নির্মাণ করেন তরুণদের ব্যবসা শেখার গেম টিন-ট্রাপেনার। বিশ্বজুড়ে দশ লাখ তরুণ উদ্যোক্তা তৈরির স্বপ্ন নিয়ে ইতোমধ্যেই তিনি ২৬টি দেশের আট লাখ ৮৫হাজারেরও বেশি তরুণের সামনে হাজির হয়েছেন।

'তারুণ্যের অগ্রাধিকার' প্রতিপাদ্য নিয়ে দেশে বিদেশের এবারের আয়োজন। আর এ আয়োজনে সাবিরুলের অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য কানাডার বাংলাদেশি তরুণদের উদ্দীপ্ত করবে বলে আয়োজকরা আশা করছেন।