logo

আইনমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে বিএনিপির পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

আইনমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে বিএনিপির পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

ঢাকা, ১১ সেপ্টেম্বর- ‘বিএনিপির আইনজীবীরা আইন জানেন না’ আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের এমন বক্তব্য প্রত্যাহার চেয়ে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির দাবির প্রেক্ষিতে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেছেন, আইনমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে বিএনপির আইনজীবীরা ঝড় তোলার চেষ্টা করছেন।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির শহীদ সফিউর রহমান মিলনায়তনে বিএনপির আইনজীবীরা সংবাদ সম্মেলন করেন। এতে বক্তব্য রাখেন সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন। এরপর একই স্থানে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন।

সংবাদ সম্মেলনে ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, কিছুদিন আগেও এই অডিটোরিয়ামে একটা অনুষ্ঠান হয়েছিল। সেখানে একটি দলের শীর্ষ নেতারা এসেছিল। সে সময়েও সংবাদ সম্মেলন করে বলেছিলাম। এটা সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির একটা পবিত্র অঙ্গন। কোনো দলের মঞ্চ হিসেবে ব্যবহৃত হওয়ার জন্য নয়। আমাদের সময় কোনো দিন এটি হয়নি, করতে দেয়া হয়নি। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে আবারও কিছু দিন পরে এ ধরনের সম্মেলন হচ্ছে। আজকেও হয়েছে। এখানে আইনমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে তারা একটি ঝড় তুলতে চেষ্টা করছেন।

আইনের মধ্যে থেকেই এবং খালেদা জিয়ার নিরাপত্তার কারণেই কারাগারে আদালত স্থাপন করা হয়েছে উল্লেখ করে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের আহ্বায়ক ইউসুফ হোসেন বলেন, আইনি কাঠামোর মধ্যে থেকেই আদালত স্থাপন করা হয়েছে। ‘কারা বিধির ৯ (২) ধারায় বলা হয়েছে, সরকার সরকারি গেজেটে সাধারণ অথবা বিশেষ আদেশ জারি করিয়া নির্দেশ দিতে পারেন যে, যে কোনো স্থানে বা স্থানসমূহে দায়রা আদালত বসিবে। এই রূপ আদেশ না দেয়া পর্যন্ত দায়রা আদালত পূর্বের ন্যায় বসিবে।’ কাজেই কোনো অবস্থাতেই বলা যাবে না যে, এটা আইনের মধ্যে নাই।

তিনি বলেন, তারা (বিএনপির আইনজীবীরা) এ বিচারকে প্রলম্বিত করার জন্য চেষ্টা করছে। এই অঙ্গনটাকে রাজনীতির মঞ্চ হিসেবে ব্যবহৃত না করে তার থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

কারাগারে আদালত বেআইনিভাব বসানো হয়েছে তারা যে অভিযোগ করছেন এ বিষয়ে আপনাদের বক্তব্য কি জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক বার কাউন্সিলের সদস্য শ ম রেজাউল করিম বলেন, বাস্তবিক হলো এটা কারাগার নয়। এটা পুরনো কারাগার। এখানে কেউ থাকেন না। এটি পরিত্যক্ত কারাগার। যার একটি অংশে বেগম খালেদা জিয়াকে রাখা হয়েছে। কারণটা হলো তার নিরাপত্তার বিষয়টা বিবেচনা করে রাখা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সহ-সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সাবেক সহ-সম্পাদক এ কে এম রবিউল হাসান সুমন ও ব্যারিস্টার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।

তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ২৪
এনওবি/১৬:০৯/১১ সেপ্টেম্বর