logo

মিশিগানে ফেঞ্চুগঞ্জ পরিবারের সাথে কাইয়ুম চৌধুরির মতবিনিময়

মিশিগানে ফেঞ্চুগঞ্জ পরিবারের সাথে কাইয়ুম চৌধুরির মতবিনিময়

মিশিগান, ৫ সেপ্টেম্বর- গত ৩রা সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রর মিশিগান স্টেটে বসবাসরত ফেঞ্চুগন্জ পরিবার জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকার সহ সভাপতি কাইয়ুম চৌধুরির আগমণ উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করে। স্থানীয় একটি পার্টি সেন্টারে আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন জনাব সফিকুর রহমান। জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব মিশিগানের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ফেঞ্চুগন্জ কলেজ ছাত্র সংসদের প্রাক্তন ভিপি ইব্রাহিম জাবেদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্যস্থ টাওয়ার হেমলেটের প্রাক্তন ডেপুটি মেয়র আ ন ম অহিদ আহমদ, দেওয়ান আকমল চৌধুরী, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব মিশিগানের সাবেক সভাপতি আব্দুল মতিন চৌধুরী, সনজিদ আলম, ফখরুল ইসলাম লয়েছ, বাংলাদেশী আমেরিরান কালচারাল এসোসিয়েশন অব নিউইয়র্কের সাধারণ সম্পাদক ও হৃদয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ অন লাইন গ্রুপের সভাপতি আহবাব চৌধুরী খোকন, মুক্তিযুদ্ধা গৌছুল হোসেন, মোহাম্মদ সনজর আলী প্রমুখ।

মত বিনিময় সভায় কাইয়ুম চৌধুরী আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, প্রবাসীরা বিদেশের মাটিতে থেকে যেভাবে দেশ ও এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন তা নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয । দেশে যে কোন দুর্যোগের সময় আপনারা যেভাবে মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন এটা প্রশংসার দাবী রাখে। তাছাড়া ইদানিং অনলাইন সংগঠন করে প্রবাসীরা যেভাবে এলাকার অসুস্থ মানুষের জন্য চিকিৎসা ব্যবস্থা নিশ্চিত করেছেন এটা আমাদেরকে খুব আশাবাদী করে তুলেছে । এজন্যই বলা হয়ে থেকে প্রবাসীরা দেশের রাষ্ট্রদূত । আপনাদর পাঠানো রেমিটেন্স শুধু আমাদের দেশকে অর্থনৈতিক ভাবে সমৃদ্ধই করছেনা ,আপনারা এই প্রবাসে থেকে বিভিন্ন ভাবে কৃতিত্ব অর্জনের মধ্য দিয়ে বর্হিবিশ্বে দেশের মানমর্যাদা বহুলাংশে বৃদ্ধি করছেন।
কাইয়ুম চৌধুরী আরও বলেন, ফেঞ্চুগন্জ বৃটিশ আমল থেকে বিভিন্ন ভাবে খ্যাতি অর্জন করলেও যোগাযোগ ব্যবস্থায় খুব অবহেলিত ছিলো ২০০১ সালে বিএনপি সরকার গঠন করলে তিনি সর্বোতভাবে চেষ্টা করেছেন এই এলাকার উন্নয়নে ভুমিকা রাখতে । এই জন্য সিলেটের উন্নয়নের রুপকার সাইফুর রহমানের অবদান অবিস্মরণীয় । সাইফুর রহমানের সমর্থনের কারণেই তখন সম্ভব হয়েছিলো ইলাশপুর সেতু,কুশিয়ারা ব্রীজ, ফেঞ্চুগন্জ বাজার সড়ক নির্মান, ছত্রিশে বাঁধ নির্মানসহ ফেঞ্চুগন্জের ভিতরের সকল সড়ক পাকা করা। স্কুলে কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা সকল জায়গায সেসময় আমি চেষ্টা করেছি উন্নয়ন করতে ।ভবিষ্যতে যদি কখনো সুযোগ আছে আমি এই ধারা অব্যাহত রাখবো । প্রবাসী ফেঞ্চুগন্জ বাসী তাকে এ সম্মান করায় তিনি সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান ।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে টাওয়ার হেমলেটের প্রাক্তন মেয়র অহিদ আহমদ বলেন কাইয়ুম চৌধুরী আমার ঘনিষ্ট বন্ধু। একসাথে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করেছে । ছাত্রজীবনে আমরা যখন লেখাধুলায় ব্যস্ত ছিলাম তখন দেখতাম কাইয়ুম চৌধুরী পুলিশের তৎকালীন আই জি ই এ চৌধুরী , সচিব ফারুক চৌধুরী , ইনাম চৌধুরী প্রমুখ উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে জালালাবাদ নিয়ে ব্যস্ত । কাইয়ুম চৌধুরী যখন বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রীর সচিব ছিলেন তখন দেখেছি শুধু ফেঞ্চুগন্জ নয সমগ্র সিলেটের উন্নয়নে কাজ করেছেন। তাই আজও সবাই কাইয়ুম চৌধুরীকে চিনে ।এখন সরকারের মন্ত্রী আছেন আছেন কাইয়ুম চৌধুরীর মতো মন্ত্রীর সচিবও ।আমরা কি কেউ চিনি ।তিনি আগামী নির্বাচনে কাইয়ুম চৌধুরীকে সংসদ সদস্য হিসাবে নির্বাচিত করতে উপস্থিত সকলের সমর্থন চান।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আহবাব চৌধুরী বলেন সারা বাংলাদেশের সকল রাজনীতিবিদরা যদি কাইয়ুম চৌধুরী মতো সৎ,সাহসী ও আন্তরিক হতো তাহলে সারা দেশের অবস্থা আজ অন্য রকম হতো । তিনি যখন সুযোগ ছিলো শুধু ফেঞ্চুগন্জের জন্য কাজ করেননি সারা দেশের মানুষ যখন যে সাহিয্য চেয়েছে তিনি করেছেন । তিনি ন্যাশনাল টি কোম্পানির পরিচালক ছিলেন, ছিলেন ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের পরিচালক। তিনি সিলেটের মানুষকে যেমন চাকরীবাকরীতে  নিয়োগ করেছেন তেমনি ক্রিকেটের উন্নয়নে ভুমিকা রেখেছেন। তিনি কাইয়ুম চৌধুরীর উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন।

মত বিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব মিশিগানের উপদেষ্টা মুজিবুর রহমান মনির, সাংগঠনিক সম্পাদক সুমন কবির , সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ ফিরোজ আলী,আব্দুল মুকিত, ফখর উদ্দীন ,প্রাক্তন চেয়ারম্যান রাজু তালুকদার , এম সি কলেজের সাবেক জিএস ওমর আশরাফ ইমন প্রমুখ।