logo

বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন কোরিয়া’র নতুন কমিটিগঠিত

বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন কোরিয়া’র নতুন কমিটিগঠিত

সভাপতি জামান সজল ও সাধারণ সম্পাদক ডঃ আরিফ

সিউল, ০১ আগস্ট- কোরিয়ার একক কমিউনিটি সংগঠন বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন কোরিয়া’র নতুন কমিটি গঠিত হয়েছে। গত রবিবার দক্ষিণ কোরিয়ার আনসানের মাল্টিকালচারাল সেন্টারের একটি মিলনায়তনে তৃতীয় বিসিকে নির্বাচনে এম জামান সজল সভাপতি এবং ডঃ আরিফ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০১৮-২০১৯ সালের জন্য নতুন কমিটি কাজ করবে। এর আগে গত ৪ মার্চ গঠনতন্ত্র অনুযায়ী বিভিন্ন পেশা থেকে ৫১ জন নির্বাহী সদস্য নির্বাচিত হন।

নব নির্বাচিত সভাপতি এম জামান সজল দীর্ঘদিন ধরে দক্ষিণ কোরিয়ায় ব্যবসা করে আসছেন। বাংলাদেশ কমিউনিটির প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই তিনি নির্বাহী সদস্য হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করে আসছেন। এছাড়া তিনি কোরিয়ার রাজনৈতিক, সামাজিক এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতেও  গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছেন।

সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত ডঃ আরিফ বর্তমানে দক্ষিণ কোরিয়া থেকে রেমিটেন্স সেবা প্রদানকারী স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান স্টার রেমিটের কর্ণধার। এর আগে তিনি দীর্ঘদিন সুনামের সাথে কোরিয়া একচেঞ্জ ব্যাংকে চাকরি করেন। খিয়ংহি ইউনিভার্সিটি থেকে কোরিয়ান সরকারের বৃত্তি নিয়ে মাস্টার্স এবং পিএইচডি শেষে ডঃ আরিফ চাকরি জীবনের শুরুতে বাংলাদেশ দূতাবাসে যোগ দেন।

এবারের নির্বাচন পরিচালনা করেন সদ্য সাবেক সভাপতি হাবিল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সরওয়ার কামাল, মনিরুজ্জামান মিলন, হাসিবুল কবির এবং আজিজুল হক বিপ্লব।

এর আগে সদ্য বিদায়ী সভাপতি হাবিল উদ্দিন বিদায়ী বক্তব্যে সকল কোরিয়া প্রবাসীকে বিগত কমিটিতে সার্বিক কর্মকান্ডে সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান।

বিসিকে’র গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতি দুইবছর পর পর ৫১ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাহী কমিটি গঠিত হয়। ব্যবসায়ী, নাগরিকত্ব, প্রফেশনাল, ছাত্র এবং ইপিএস কর্মীদের সমন্বয়ে ৪০ সদস্যের কমিটি গঠিত হওয়ার পর নির্বাহী কমিটির পরামর্শের ভিত্তিতে ১১ জনকে আঞ্চলিক কোটায় মনোনীত করা হয়।

উল্লেখ্য, কোরিয়ায় প্রবাসীদের একক একটি সংগঠন তৈরীর লক্ষ্যে ২০১৩ সালের ১ সেপ্টেম্বর একটি সমন্বয় কমিটি গঠিত হয়। সমন্বয় কমিটির অধীনে ২০১৪ সালের ৯ ফেব্রুয়ারী নির্বাচন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে  বিসিকের যাত্রা শুরু হয়। ২০১৫ সালের বিসিকে প্রথম বাংলাদেশী কমিউনিটি সংগঠন হিসেবে কোরিয়ান সরকারের তালিকাভুক্তি হয়।

আর/১০:১৪/০১ আগস্ট