Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English
হাস্যরসে ভরপুর লেখা দিতে লগইন/রেজিষ্টার করুন

হাসিখুশি ক্লাব

দাদা-নাতি

দাদা : যা, পালা তাড়াতাড়ি। তুই আজকে স্কুলে যাস নাই। তাই তোর হেডমাস্টার বাড়ির দিকে আসতেছে। নাতি : আমি পালামু না দাদু। তুমি পালাও। কারণ আমি স্যারকে বলেছি আমার…

কলিংবেল...

ফ্ল্যাট বাড়ির তিন তলায় ছয় বছরের এক ছেলে কলিংবেল বাজাবার চেষ্টা করছে কিন্তু নাগাল পাচ্ছে না। এক ভদ্রলোক তা দেখে কলিংবেল টিপে জিজ্ঞেসা করলেন, আবার বাজাবো কি? ছেলেটি বলল, আমি তো পালাব। আপনি কি করবেন তা আমি কি জানি?

চকলেট বাদাম!!!

এক বুড়ি প্রায়ই হাবলুকে বাদাম খাওয়াত… একদিন হাবলু জিজ্ঞেস করলঃ আপনি প্রায়-ই আমাকে এত মজার বাদাম খাওয়ান! আপনি নিজে কেন খাননা? বুড়িঃ আমার যে বাদাম চাবানোর দাঁত নাই! হাবলুঃ তাহলে কিনেন কেন? বুড়িঃ কারণ বাদামগুলা যে চকলেট-এ থাকে তা আমি চেটে খেতে অনেক পছন্দ করি!

২১ পেয়ে অহংকার!!!

শিক্ষকঃ বাংলায় মাত্র একুশ পেয়েও হাসছিস্ তোর লজ্জা করে না? ছাত্রঃ স্যার, আমি গর্ববোধ করছি  শিক্ষকঃ ওরে গাধা ... পিটিয়ে আজ তোকে..! ছাত্রঃ কেন স্যার ! গতকালই না আপনি বললেন একুশ নিয়ে আমাদের গর্ব ও অহংকার করা উচিত ।....

আবুলের রচনা!!!

আবুলের ছেলে ইংরেজীতে পুরাই কাচাঁ। গজামিল দিয়ে ইংরেজী মিলায়। বহু কষ্টে "My Friend" রচনা মূখস্ত করতে না পেরে পরীক্ষার হলে নকল নিয়ে গেল। কিন্তু পরীক্ষায় আসলো "My father" রচনা। এটা দেখে সে ঠিক করল রচনা তো রচনাই। "friend" এর জায়গাই "father" লাগাইয়া দিলেই হবে। যেই ভাবা সেই কাজ, তাই সে লেখা শুরু করলঃ "I'm very Fatherly person. I have lots of fathers. Some of my fathers are male and some are female. My True Fatheris my Neighbour" ইহা দেখিয়া ইংরেজী শিক্ষক বেহুশ!!!

ইচ্ছাপূরণ দৈত্য!!!  

পল্টু হেঁটে যাচ্ছিল বনের ভেতর দিয়ে। ঘুটঘুটে অন্ধকার। হঠাৎ শোনা গেল অশরীরী আওয়াজ, ‘পল্টু’। পল্টু: কে? কে কথা বলে? অশরীরী: ভয় পেয়ো না। আমি ইচ্ছাপূরণ দৈত্য। আজ এই শুভদিনে আমি তোমার একটি ইচ্ছা পূরণ করব। বলো, কী চাও তুমি? সাহস ফিরে পেল পল্টু। বলল, ‘আমার জন্য পুরো বিশ্ব পরিভ্রমণ করে আসবে, এমন একটা ট্রেন সার্ভিস চালু করে দাও, যেন আমি ঘুরে ঘুরে সব দেশের নববর্ষের উৎসব উপভোগ করতে পারি।’ দৈত্য: এটা তো খুব কঠিন কাজ। তুমি বরং অন্য কিছু চাও। পল্টু: তাহলে আমাকে এমন ক্ষমতা দাও, আমি যেন মেয়েদের মন বুঝতে পারি। দৈত্য: ট্রেন কি এসি, নাকি নন-এসি লাগবে?

আবুল আর বউ

আবুলের বউ, বড় রোমান্টিক মোডে আবুলকে জিজ্ঞাসা করলো, আচ্ছা তুমি যদি আমাকে একদিন না দেখতে পাও,  তাহলে তোমাকে কেমন লাগবে? আবুল অতো ঢং সহ্য করতে না পেরে মুখ ফুসকে সত্য কথাটা বলেই ফেললো-ভালোই লাগবে। তারপর আবুল তার বেচারি বউকে শনিবার দেখতে পেলোনা.... রবিবার দেখতে পেলোনা..... সোমবার দেখতে পেলোনা.... মঙ্গলবারও দেখতে পেলোনা....., এভাবে দীর্ঘ এক সপ্তাহ পর, শুক্রবারে আবুল তার বউকে একটু একটু কর দেখত পেলো, যখন হসপিটালের ডাক্টাররা আবুলের দুচোখ থেকে সব মরিচের গুড়া বের করতে সক্ষম হয়েছিলো।

বল্টুর সন্ধি বলা!!!

শিক্ষকঃ বল্টু,বল সন্ধি কাকে বলে??? বল্টুঃ স্যার, প্রথমটুকু পারি না…শেষেরটুকু পারি……….। শিক্ষকঃ মনে মনে বলছেন..(বল্টুর মতন খারাপ ছাত্র সন্ধি শেষেরটুকু পারলেও ভাল) তাই তিনি বললেন….. বল শেষেরটুকুই বল। বল্টুঃ স্যার, শেষেরটুকু হল… "তাকে সন্ধি বলে"

শিক্ষক ও বল্টু!!!

শিক্ষক : আচ্ছা বল্টু তুমি কি আজ কোনো ভাল কাজ করছো । বল্টু : জি স্যার। শিক্ষক : কি সেই কাজ বলতো। বল্টু : স্যার আমি আর রাজু মিলে এক বুড়ি কে বড় রাস্তা পার করে দিয়েছি । শিক্ষক : তা বেশ,কিন্তু দুই জন লাগলো কেন। বল্টু : বুড়ি তো পার হতেই চাচ্ছিল না।।

স্বামী ও স্ত্রী !!!

স্ত্রী: এতক্ষণ ধরে ওই কাগজটিতে কী দেখছ তুমি? স্বামী: কই, কিছু না তো! স্ত্রী: আরে, এ যে দেখি ডাহা মিথ্যে কথা বলছ। তুমি প্রায় চার ঘণ্টা ধরে আমাদের কাবিননামা এত খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখছটা কী, শুনি? স্বামী: না, তেমন কিছু নয়। অনেকক্ষণ ধরে খুঁজেও কেন জানি কাবিননামার মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখটা বের করতে পারলাম না।

বাঘের বিয়ে!!!

বনে বাঘের বিয়ে হচ্ছে। সেখানে এসেছে শিয়াল, হাতি, সিংহ, ভাল্লুক আরো অনেকে। সবাই অনেক নাচ গান করছে। কিন্তু বিড়াল কিছুটা ব্যতিক্রম। সে একটু নাচে আর একটু কাঁদে। তা সিংহ মামার নজরে গেলো। বিড়ালের কাছে এসে বিড়ালকে বলছে....... সিংহ: কিরে বিলাই, তুই একবার নাচোসতো আর একবার কান্দোস, ঘটনা কি? বিড়াল: কি আর কমু মামু, নাচি বাঘ মামুর বর্তমান অবস্থা দেইখা আর কান্দি বাঘ মামুর ভবিষ্যত চিন্তা কইরা। সিংহ: ভবিষ্যত চিন্তা কইরা মানে? বিড়াল: মামু, আমিও এক সময় বাঘ মামুরলাহান বাঘ আছিলাম, বিবাহ কইরা বিলাই-এ পরিনত হইছি।

দুই বেকার!!!

পার্কের বেঞ্চে বসে দুই বেকার নিজেদের মধ্যে আলাপ করছে। ১ম বেকার: আরে এমনও দিন ছিল যখন আমার দু'হাত ভর্তি টাকা থাকত। কিন্তু মালিক আমাকে বিশ্বাস করে না বলে কাজটা হারাতে হলো। ২য় বেকার: তা তুমি বুঝি কোনো প্রতিষ্ঠানের ক্যাশিয়ার ছিলে? ১ম বেকার : না রে ভাই, আমি ছিলাম বাসের কন্ডাক্টর!

 1 2 3 >  শেষ ›
Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে